Sponsored Links

Breaking

Monday, January 7, 2019

বাইয়াত গ্রহন সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু আয়াত ও হাদিস।

বাইয়াত গ্রহন সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু আয়াত ও হাদিস।


1. হে রাসূল যারা আপনার হাতে বাইয়াত করছিল তারা আসলে আল্লাহর কাছে বাইয়াত গ্রহন করছিল, তাদের হাতের উপরই আল্লাহর হাত ছিল। এখন যে এ ওয়াদা ভঙ্গ করবে এবং কুফল তার উপরই পরবে। আর আল্লাহর সাথে ওয়াদা করে যে তারা পূরণ করবে, আল্লাহ শিগগিরই তাকে বড় পুরস্কার দেবেন। ( সূরা ফাতাহ আয়াত 10)

2. হে রাসূল আল্লাহ তায়ালা মুমিনদের প্রতি সন্তুষ্টি হয়ে গেলেন যখন তারা গাছের তলায় আপনার কাছে বাইয়াত গ্রহন করছিল। তাদের মনের অবস্থা তাঁর জানা ছিল। তাই তিনি তাদের উপর সান্তনা নাজির করলেন এবং পুরষ্কার হিসাবে নিকটবর্তী বিজয় দান করলেন। ( সূরা ফাতাহ আয়াত 18)

3. আসল কথা হলো আল্লাহ মুমিনদের কাছ হতে তাদের জান ও মাল বেহেশতের বদলে কিনে নিয়েছেন। তারা আল্লাহর পথে লড়াই করে, দুশমন কে মারে এবং নিহত হয়। তাদেরকে (বেহেশত দেওয়ার ওয়াদা) করা হয়েছে। ওয়াদা পালনে আল্লাহর সাথে যে বেচাকেনা কারবার করছে, সে বিষয়ে খুশি হয়ে যাও। এটাই সবচেয়ে বড় সফলতা। ( সুরা তাওবা আয়াত 111)

4. হে নবী , যখন আপনার কাছে মুমিন মেঢেরা বাইয়াত করতে আসে এবং এ ওয়াদা করে যে, তারা আল্লাহর সাথে কোন কিছুর শরিক করবে না, চুরি করবে না, জেনা করবে না, নিজ সন্তানকে হত্যা করবে সা, জেনে শুনে কোনো অপবাদ বচন করবে না, কোনো ভাল কাজে আপনার নফরমানী কবে না। তাহলে তাদের বাইয়াত কবুল করুন এবং তাদের জন্য আল্লাহর নিকট মাগফিরাতের জন্য দু’আ করুন। নিশ্চয় আল্লাহ ক্ষামাশীল ও দয়াময়। ‍( সূরা মুমতাহিনা আয়াত 12)

5. হযরত আব্দুল্লাহ  ইবনে ওমর (রা:) বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ কে বলতে শুনেছি, যে ব্যাক্তি আনুগত্য থেকে তার হাতেক খুলে ফেলল, কিয়ামতের দিন যে আল্লাহর সাথে সাক্ষাৎ করবে এমন ভাবে  যে তার বলার কিছু থাকবে না। আর যে ব্যাক্তি বাইয়াতের বন্ধন ছাড়াই মারা গেল সে জাহিলিয়াতের মৃত্যুবরণ করল। (মুসলিম শরীফ  3441)

No comments:

Post a Comment