বিসিএস (ক্যাডার) পদে নিয়োগ পরিক্ষা পদ্ধতি, বিষয়, মানবন্টন ও বিস্তারিত সিলেবাস সহ সকল তথ্য। BCS - StudyinfoBD.Com

Breaking

Wednesday, May 29, 2019

বিসিএস (ক্যাডার) পদে নিয়োগ পরিক্ষা পদ্ধতি, বিষয়, মানবন্টন ও বিস্তারিত সিলেবাস সহ সকল তথ্য। BCS

বিসিএস (ক্যাডার) পদে নিয়োগ পরিক্ষা পদ্ধতি, বিষয়, মানবন্টন, বিস্তারিত সিলেবাস সহ সকল তথ্য।

প্রথমে জেনে নেওয়া যাক বিসিএস পরীক্ষা কী?

বিসিএস পরীক্ষা বা বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা হল দেশব্যাপী পরিচালিত একটি প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা যা, বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (বিপিএসসি) কর্তৃক  বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের বিসিএস (প্রশাসন), বিসিএস (কর), বিসিএস (পররাষ্ট্র) ও বিসিএস (পুলিশ) সহ ২৬ পদে কর্মী নিয়োগের  জন্য পরিচালিত হয়।[১] যা পূর্বে ২৭টি ছিল, ২০১৮ সালে ইকোনমিক ক্যাডারকে প্রশাসন ক্যাডারের সাথে একত্রিত করে। বিসিএস  পরীক্ষা পর্যায়ক্রমে তিনটি ধাপে অনুষ্ঠিত হয়- প্রাথমিক পরীক্ষার (এমসিকিউ), লিখিত পরীক্ষা এবং  মৌখিক পরীক্ষা (ইন্টারভিউ)। পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ থেকে চুড়ান্ত ফলাফল পর্যন্ত সমগ্র প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে ১.৫ থেকে ২ বছর সময় লাগে।[


কারা দিতে পারবে বা যোগ্যতা

উচ্চ মাধ্যমিক পাসের পর চার বছরের অনার্স পাস হলেও বিসিএস পরীক্ষায় আবেদন করা যায়। কেউ যদি তিন বছরের অনার্স বা পাস কোর্সে পড়ে থাকে তাহলে তাকে অবশ্যই মাস্টার্স পাস হতে হবে। শিক্ষা জীবনে একের অধিক তৃতীয় শ্রেণী থাকলে বিসিএস পরীক্ষায় আবেদনের অযোগ্য।

বিসিএস (ক্যাডার) পদে নিয়োগ পরিক্ষা পদ্ধতি

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণের জন্য প্রণীত বিসিএস (বয়স, যোগ্যতা ও সরাসরি নিয়োগের জন্য পরীক্ষা) বিধিমালা-২০১৪ অনুযায়ী বিসিএস-এর নিম্নোক্ত ২৭টি ক্যাডারে উপযুক্ত প্রার্থী নিয়োগের উদ্দেশ্যে কমিশন কর্তৃক ৩ স্তরবিশিষ্ট পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।

 বিসিএস-এর ২৭টি ক্যাডারের নাম (ইংরেজি বর্ণমালার ক্রমানুসারে)

১.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন)  
সাধারণ ক্যাডার
মন্তব্য
২.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (কৃষি)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
বাংলাদেশ গেজেটে ১৩ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে প্রকাশিত এস.আর.ও. নম্বর-৩৩৫-আইন/২০১৮ অনুযায়ী বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (ইকোনমিক) ক্যাডারকে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন) ক্যাডারের সাথে একীভূত করা হয়েছে।
৩.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (আনসার)
সাধারণ ক্যাডার
৪.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (নিরীক্ষা ও হিসাব)
সাধারণ ক্যাডার
৫.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (সমবায়)
সাধারণ ক্যাডার
৬.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (শুল্ক ও আবগারি)
সাধারণ ক্যাডার
৭.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (ইকনমিক)
সাধারণ ক্যাডার
৮.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (পরিবার পরিকল্পনা)
সাধারণ ক্যাডার
৯.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (মৎস্য)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
১০.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (খাদ্য)
সাধারণ এবং কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
১১.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (পররাষ্ট্র)
সাধারণ ক্যাডার
১২.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বন)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
১৩.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (সাধারণ শিক্ষা)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
১৪.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (স্বাস্থ্য)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
১৫.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (তথ্য)
সাধারণ এবং কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
১৬.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (পশু সম্পদ)
সাধারণ এবং কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
১৭.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (পুলিশ)         
সাধারণ ক্যাডার
১৮.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (ডাক)
সাধারণ ক্যাডার
১৯.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
২০.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (গণপূর্ত)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
২১.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (রেলওয়ে প্রকৌশল)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
২২.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস 
(রেলওয়ে পরিবহন ও বাণিজ্যিক)
সাধারণ এবং কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
২৩.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (সড়ক ও জনপথ)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
২৪.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (পরিসংখ্যান)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
২৫.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (কর)
সাধারণ ক্যাডার
২৬.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (কারিগরি শিক্ষা)
কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার
২৭.
বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বাণিজ্য)
সাধারণ এবং কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার

         

বিসিএস এর তিনস্তর বিশিষ্ট পরীক্ষা পদ্ধতি

বিসিএস (বয়স, যোগ্যতা ও সরাসরি নিয়োগের জন্য পরীক্ষা) বিধিমালা-২০১৪-এর বিধান অনুযায়ী বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে উপযুক্ত প্রার্থী মনোনয়নের উদ্দেশ্যে সরকারী কর্ম কমিশন নিম্নোক্ত ৩ স্তর বিশিষ্ট নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণ করে থাকে
প্রথম স্তরঃ ২০০ নম্বরের MCQ Type Preliminary Test ।
দ্বিতীয় স্তরঃ প্রিলিমিনারি টেস্টে কৃতকার্য প্রার্থীদের জন্য ৯০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা।
তৃতীয় স্তরঃ লিখিত পরীক্ষায় কৃতকার্য প্রার্থীদের জন্য ২০০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা।

প্রথম স্তরঃ ২০০ নম্বরের MCQ Type Preliminary Test

শূন্য পদের তুলনায় প্রার্থী সংখ্যা বিপুল হওয়ায় লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে উপযুক্ত প্রার্থী বাছাই-এর জন্য বিসিএস (বয়স, যোগ্যতা ও সরাসরি নিয়োগের জন্য পরীক্ষা) বিধিমালা-২০১৪-এর বিধি-৭ অনুযায়ী বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশন ২০০ নম্বরের MCQ Type প্রিলিমিনারি টেস্ট গ্রহণ করে থাকে। ৩৪তম বিসিএস পরীক্ষা পর্যন্ত ১০০ নম্বরে প্রিলিমিনারি টেস্ট গ্রহণ করা হতো। বিসিএস পরীক্ষা বিধিমালা-২০১৪-এর বিধানমতে ৩৫তম বিসিএস পরীক্ষা হতে ২০০ নম্বরের ২ ঘণ্টা সময়ে ১০টি বিষয়ের উপর MCQ Type প্রিলিমিনারি টেস্ট গ্রহণের ব্যবস্থা প্রবর্তন করা হয়েছে।

প্রিলিমিনারি টেস্ট-এর বিষয় ও নম্বর বণ্টন

ক্রমিক নম্বর
বিষয়ের নাম
নম্বর বণ্টন
১.
বাংলা ভাষা ও সাহিত্য
৩৫
২.
ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য
৩৫
৩.
বাংলাদেশ বিষয়াবলি
৩০
৪.
আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি
২০
৫.
ভূগোল (বাংলাদেশ ও বিশ্ব), পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা
১০
৬.
সাধারণ বিজ্ঞান
১৫
৭.
কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি
১৫
৮.
গাণিতিক যুক্তি
১৫
৯.
মানসিক দক্ষতা
১৫
১০.
নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সু-শাসন
১০
মোট
২০০

প্রিলিমিনারি টেস্ট -এর বিস্তারিত সিলেবাস২য় স্তরঃ  ৯০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা (গড় পাস নম্বর ৫০%)

প্রিলিমিনারি টেস্ট-এ কমিশন কর্তৃক কৃতকার্য ঘোষিত প্রার্থীদের ৯০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হয়। নির্ধারিত শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী ২৭টি ক্যাডার সাধারণ ক্যাডার এবং কারিগরি/পেশাগত ক্যাডার এই দুই ক্যাটাগরিতে বিভক্ত।
ক. সাধারণ ক্যাডারের প্রার্থীদের জন্য ৯০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা।
খ. কারিগরি/পেশাগত ক্যাডারের প্রার্থীদের ৯০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা।
ক. সাধারণ ক্যাডারের প্রার্থীদের জন্য লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক নম্বর বণ্টন

ক্রমিক নম্বর
আবশ্যিক বিষয়
নম্বর বণ্টন
১.
বাংলা
২০০
২.
ইংরেজি         
২০০
৩.
বাংলাদেশ বিষয়াবলি
২০০
৪.
আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি
১০০
৫.
গাণিতিক যুক্তি ও মানসিক দক্ষতা
১০০
৬.
সাধারণ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
১০০
মোট
৯০০
                  

খ.  কারিগরি/পেশাগত ক্যাডারের প্রার্থীদের জন্য লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক নম্বর বণ্টন
ক্রমিক নম্বর
আবশ্যিক বিষয়
নম্বর বণ্টন
১.
বাংলা
১০০
২.
ইংরেজি         
২০০
৩.
বাংলাদেশ বিষয়াবলি
২০০
৪.
আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি
১০০
৫.
গাণিতিক যুক্তি ও মানসিক দক্ষতা
১০০
৬.
পদ-সংশ্লিষ্ট বিষয়
২০০
মোট
৯০০

লিখিত পরীক্ষার বিস্তারিত সিলেবাসপদ সংশ্লিষ্ট (Job-related) বিষয়ের পরীক্ষা


যে সকল প্রার্থী সাধারণ ও কারিগরি/পেশাগত উভয় ক্যাডারের পদের জন্য পছন্দক্রম দেবেন, তাদেরকে সাধারণ ক্যাডারের জন্য নির্ধারিত বিষয়ের ৯০০ নম্বরের অতিরিক্ত সংশ্লিষ্ট পদ বা সার্ভিসের জন্য প্রাসংগিক বিষয়ের ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা দিতে হয়।

৩য় স্তরঃ  বিসিএস-এর ২০০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা (পাস নম্বর ৫০%)

বিসিএস-এর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ২০০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক। মৌখিক পরীক্ষায় পাশ নম্বর ৫০%।

বিসিএস-পরীক্ষার সাক্ষাৎকার বোর্ড গঠন

লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের উপযুক্ততা নির্ধারণের জন্য বিসিএস পরীক্ষা বিধিমালার বিধান অনুযায়ী কমিশন নিম্নোক্তভাবে মৌখিক পরীক্ষার বোর্ড গঠন করে থাকেঃ

১.
কমিশনের চেয়ারম্যান/সদস্য
বোর্ড চেয়ারম্যান
২.
সরকার কর্তৃক মনোনীত যুগ্মসচিব বা তদূর্ধ্ব পদমর্যাদার কর্মকর্তা
বোর্ড সদস্য
৩.
কমিশন কর্তৃক মনোনীত বিষয়ভিত্তিক বিশেষজ্ঞ
বোর্ড সদস্য
পোস্ট ক্রেডিট/ পোস্ট সংগ্রহ করা হয়েছে বাংলাদেশ কর্মকমিশন ওয়েবসাইট থেকে।

লেখা-পড়া বিষয়ক সকল তথ্য ও চাকরির খবর পেতে আমাদের সাইটি ভিজিট করার অনুরোধ রইল। ধন্যবাদ

No comments:

Post a Comment